পার্কিং ব্যবস্থাপনায় স্মার্ট সিকিউরিটি সিস্টেম

পার্কিং ব্যবস্থাপনায় স্মার্ট সিকিউরিটি সিস্টেম

পড়তে সময় লাগবে: 4 মিনিট...

বিজ্ঞানের এই চরম উৎকর্ষতার যুগে সকল ক্ষেত্রে এসেছে আমূল পরিবর্তন এবং তা লক্ষ্যণীয়। আমাকে, আপনাকে এর সঠিক ব্যবহারের জন্য একটু চেষ্টা করে যেতে হবে মাত্র। আমরা চাইলেই পরিবর্তন করতে পারি, বদলে দিতে পারি আমাদের প্রাণের শহরকে। এত যানজট, এত পরিবেশ দূষণ এই সকল কিছুর পেছনে অবৈধ পার্কিং ব্যবস্থা অনেকাংশে দায়ী। আর অবৈধ পার্কিং এর কারণ হিসেবে আমরা পার্কিং এর অপ্রতুলতা এবং এর আধুনিক ব্যবস্থাপনার যে অভাব আছে এটা অস্বীকার করতে পারবনা। হাতের কাছে পার্কিং ব্যবস্থা থাকলে এবং তা যদি হয় স্মার্ট কার পার্কিং সিস্টেম তাহলে লোকজন অবশ্যই নির্ধারিত স্থানে পার্ক করবে।

এর জন্য আমাদের পার্কিং ব্যবস্থাকে করতে হবে আধুনিক এবং স্বয়ংক্রিয়। আর আপনার পার্কিং ব্যবস্থাকে আধুনিক এবং স্বয়ংক্রিয় করার জন্য পরিপূর্ণ সহায়তা করবে পাই ল্যাবস বাংলাদেশ লিঃ

পাই ল্যাবস স্মার্ট কার পার্কিং সল্যুশনকে তিন ভাগে ভাগ করেছেঃ

   ১) পার্কিং সিকিউরিটি সিস্টেম ( Parking Security System)

২) পার্কিং টিকিটিং সিস্টেম (Parking Ticketing System)

৩) পার্কিং গাইডেন্স সিস্টেম (Parking Guidance System)

এখানে আমরা কথা বলবো পার্কিং সিকিউরিটি সিস্টেম নিয়ে। দেখে নিন যা থাকছে পার্কিং সিকিউরিটি সিস্টেমেঃ

পার্কিং ব্যারিয়ারঃ

পার্কিং সিকিউরিটি সিস্টেম নিয়ে আলোচনা করলে প্রথমেই আসে পার্কিং ব্যারিয়ারের কথা, পার্কিং এর ক্ষেত্রে খুব মৌলিক একটি উপাদান। পার্কিং ব্যারিয়ার আসলে যে শুধুমাত্র পার্কিং এর ক্ষেত্রে ব্যবহার হয় তা কিন্তু না। আমি ব লবো পার্কিং ব্যারিয়ার একটি বহুমুখি কাজে ব্যবহৃত বস্তু। যেমন এটা পার্কিং সিকিউরিটি এর ক্ষেত্রে, ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়, চেকপোস্ট বসানোর ক্ষত্রে ব্যবহৃত হয়, টোল ব্যবস্থাপনার কাজে, এই ধরনের অনেক নিরাপত্তাজনিত কাজে পার্কিং ব্যারিয়ার ব্যবহার হয়।

Image: parking barrier

হুইল স্টপারঃ

পার্কিং স্পেসে গাড়ি রাখার জন্য প্রয়োজন হয় হুইল স্টপারের। পার্কিং স্পেসে যখন গাড়ি রাখা হয় তখন যেন গাড়িটি গড়িয়ে গিয়ে অন্য কোন গাড়িকে ক্ষতিগ্রস্থ না করে বা দেয়ালে ধাক্কা লেগে গাড়ির ক্ষতি না হয়, সেই জন্য এই হুইল স্টপার ব্যবহার করা হয়।

Image: Wheel stopper

স্পীড ব্রেকারঃ

স্পীড ব্রেকারের সাথে কিন্তু আমরা সকলেই পরিচিত। গাড়ির গতি কমানোর জন্য মূলত এই স্পীড ব্রেকার ব্যবহার করা হয়। গাড়ি যখন আপনার পার্কিং স্পেসে প্রবেশ করবে তখন যদি এর গতি কমিয়ে না দেয়া হয়, তাহলে কিন্তু একটা দূর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। এই দূর্ঘটনা রোধের জন্যই মূলত স্পীড ব্রেকার ব্যবহার করা হয়।

Image: parking Bump/Barrier

পার্কিং ট্রাফিক সিস্টেমঃ

অনেক পার্কিং স্পেস থাকে যেই গুলোর ওয়ানওয়ে পার্কিং সিস্টেম। মানে এদের প্রবেশমুখ এবং এক্সিটের রাস্তা একটাই থাকে। সে ক্ষেত্রে দুইটা গাড়ি যেন একটার সাথে আরেকটা মুখোমুখি না হয় এর জন্য ট্রাফিক সিস্টেম লাইট ব্যবহার করা হয়। ধরুন ভেতরে থেকে একটা গাড়ি বাহিরে আসতেছে তখন স্বয়ংক্রিয় ভাবে রেড লাইট জ্বলে থাকবে, যা দেখে প্রবেশ মুখে যে আছে সে বুঝতে পারবে কেউ একজন পার্কিং থেকে বের হচ্ছে।

Image: Parking Traffic Light

পার্কিং মিরোরঃ

অনেক পার্কিং এর প্রবেশ মুখে অনেক বাগ থাকে যার ফলে সামনে বা পেছনের গাড়ি দেখা সম্ভব হয় না। এবং এর ফলে দুই গাড়ি মুখোমুখি সংঘর্ষের সম্ভবনা থাকে। এই সমস্যা দূর করার জন্য এই পার্কিং মিরোর ব্যবহার করা হয়।

Image: Parking Mirror

আর এফ আই ডি রিডারঃ

আর এফ আই ডি সম্পর্কে আপনারা অনেকেই হয়তো জানেন যে এটি একটা (Radio frequency identification Device) ডিভাইস। প্রশ্ন জাগতে পারে যে এখানে এর কজ কি? হ্যাঁ বলছি, আপনার পার্কিং এর অথোরাইজড এবং আনঅথোরাইজড গাড়িকে পৃথক করাই এর কাজ। অনেক পার্কিং স্পেস আছে যেখানে অনেক আনঅথোরাইজড গাড়ি প্রবেশ করে, এটা পার্কিং ম্যানেজমেন্টের জন্য অনেক বিরক্তির কারণ। এই সমস্যা দূর করবে এই আর এফ আই ডি রিডার।

সিকিউরিটি ক্যামেরাঃ

আপনার পার্কিং এর গাড়ি গুলোকে নিরাপদ রাখতে সিকিউরিটি ক্যামেরা গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালোন করবে। পার্কিং এর গাড়ি চুরি রোধ, পার্কিং নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সর্বপুরি পার্কিং ম্যানেজমেন্ট এর অনেকখানি দায়িত্ব এই ডিভাইসটি পালোন করবে।

পার্কিং এর সৌন্দর্য বর্ধন এবং দিক নির্দেশক চিহ্নঃ

আপনার পার্কিং স্পেস যদি অনেক বড় হয় তাহলে সেখানে বিভিন্ন পার্কিং সাইন থাকা জরুরী। কারন পার্কিং স্পেসে পার্ক করার জন্য কখন কোন দিকে যেতে হবে বা কোন দিকে পার্কিং স্পেস ফাকা আছে তা বোঝানোর জন্য বিভিন্ন চিহ্ন থাকলে তা পার্ক করার জন্য সুবিধা হবে। এবং সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য পার্কিং এর দেয়ালে বিভিন্ন চিহ্ন একে দিলে তা দেখতে সুন্দর লাগবে।

এই সবগুলো সার্ভিস মিলিয়ে পাই ল্যাবস বাংলাদেশ লিঃ আপনাকে দিচ্ছে পার্কিং সিকিউরিটি সিস্টেম।

পার্কিং সিকিউরিটি সিস্টেমের সুবিধাঃ

১) গাড়ি চুরির ভয় থাকবে না, আপনার গাড়ি থাকবে শতভাগ নিরাপদ।

২) আনঅথরাইজড গাড়ি প্রবেশের সুযোগ থাকবে না।

৩) পার্কিং ম্যানেজম্যান্টে অধিক লোকের প্রয়োজন হবে না।

৪) পার্কিং ম্যানেজম্যান্টের খরচ কমে যাবে।

৫) আপনার বিল্ডিং এর মূল্যমান বাড়াবে।

আমাদের দেশের পার্কিং ব্যবস্থা উন্নত করা এবং সাধারন জনগণকে সঠিক স্থানে পার্কিং করার বিষয়ে সচেতন করা অতীব জরুরী। নিয়ম বহির্ভূত ভাবে গাড়ি পার্কিং এর ফলে রাস্তায় যানজট, গাড়ি চুরি, ছিনতাই সহ নানা ধরনের অপ্রত্যাশিত ঘটনা আমরা প্রতিনিয়ত দেখি। এ সকল সমস্যার অনেকটাই সমাধান করতে পারে পার্কিং ব্যবস্থার প্রতি মানুষের আগ্রহ বাড়ানোর মাধ্যমে। এবং এর জন্য প্রয়োজন পার্কিং ব্যবস্থার আধুনিকায়ন।

 39 total views,  1 views today

Share your vote!


Related Posts

To Buy Prohori

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

© 2021